একমাস বন্ধ গান, কথাও বলতে পারবেন না সাহানা


সাহানা বাজপেয়ীর ভক্তদের জন্য মন খারাপ করা খবর। এক মাসের জন্য বন্ধ হল শিল্পীর কথা, তিনি সম্ভাবত গানও গাইতে পারবেন না। সারাক্ষণ যে কথা বলতে ভালোবাসেন সেই মানুষকে পালন করতে হবে এক মাসের মৌনতা। আর নিজেই ফেসবুকের দেওয়ালে সে কথা জানিয়েছেন সাহানা বাজপেয়ী। খবর হিন্দুস্তান টাইমস।

বাংলা সংগীত জগতের অন্যতম নাম সাহানা বাজপেয়ী। তার ইউনিক ভয়েস টেক্সচার বরাবরই চোখ টেনেছে শ্রোতা দর্শকদের। রবীন্দ্রসংগীত থেকে লোকগান, সাহানার কন্ঠের জাদুতে সব সময় মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে যায় সকলে। কিন্তু শান্তিনিকেতনের এই চঞ্চলাকে কেন চুপ থাকতে হবে একমাস?

শুক্রবার (১২ নভেম্বর) ফেসবুকের দেওয়ালে শিল্পী লেখেন, আমার গলায় স্ট্রোবোস্কোপিক পরীক্ষা হয়। তাতেই জানা যায়, আমার ভয়েস বক্সে হেমারেজ হয়েছে। বিশ্রামে থাকতে বলা হয়ছে আমাকে। সম্পূর্ণ বিশ্রাম দিতে হবে গলাকে। প্রায় একমাস গান গাইতে পারব না, কথা বলতে পারব না, চিৎকারও করতে পারব না। আমার এই অবস্থার কথা জেনে দয়া করে আপনারা আমার পাশে থাকুন। আমিও চেষ্টা করব নিজের এই নিশ্চুপ আমিটার পাশে থাকতে। এই আমিটাকে আমি যে চিনিই না। এই সম্পূর্ণ অজানা আমিটাকেও আমাকে জানতে হবে। যাদের উপর আমি চিৎকার করে উঠি, তারা দয়া করে আমার ধারে কাছে ঘেঁষবেন না এখন।

সাহানার পোস্টের কমেন্ট বক্সে গায়িকার দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন পরিচিত, বন্ধু এবং শুভাকাঙ্খীরা। এই রোগে গলাকে বিশ্রাম দেওয়া ছাড়া সেরে উঠবার অন্য কোনও পথ নেই তা মন্তব্য বাক্সেও উল্লেখ করেছেন অনুরাগীদের অনেকে। সকলেই শিল্পীকে অনুরোধ জানিয়েছেন, নিজের খেয়াল রাখবার।

বাংলা সংগীত জগতে এক দশকেরও বেশি সময় ধরে দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন সাহানা। তিনি মিউজিক্যাল কেরিয়াল শুরু করেছিলেন ২০০৭ সালে। ওই বছর মুক্তি পায় তার ডেবিউ অ্যালবাম ‘নতুন করে পাব বলে’। এরপর ‘শিকড়’, ‘যা বলো তাই বলো’, ‘মন বান্ধিবি কেমনে’-এর মতো একাধিক অ্যালবামে শ্রোতাদের কিছু না ভোলা গান উপহার দিয়েছেন তিনি।

বাংলা ছবিতেও গান গেয়েছেন তিনি। ‘তাসের দেশ’ ছবির ‘বলো সখি বলো’র সঙ্গে প্লে-ব্যাক দুনিয়ায় পা রাখা সাহানার, এরপর ‘হাওয়া বদল’, ‘ফ্যামিলি অ্যালবাম’, ‘ষড়রিপু’, ‘রেনবো জেলি’, ‘এক যে ছিল রাজা’, ‘কণ্ঠ’র মতো ছবিতে গান গেয়েছেন সাহানা বাজপেয়ী।

ডি-ইভূ



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *