সেমিফাইনালে ম্যাচ টাই হলে যা করবে আইসিসি


২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপের আইসিসির অদ্ভূত নিয়মের বলি হয়েছিল নিউজিল্যান্ড। সেবার ফাইনালে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হয়েছিল কিউইরা। দুই দলের ইনিংস শেষে ম্যাচ টাই হয়, ফলাফল নিশ্চিতে ম্যাচ গড়ায় সুপার ওভারে। সেটাও টাই হয়। শেষ পর্যন্ত বিজয়ী নির্ধারণ করতে আইসিসি নিয়ম করে ম্যাচে বেশি বাউন্ডারি মেরেছে যে দল, তারাই জিতবে শিরোপা। এমন অদ্ভূত নিয়মের বলি হয়ে হৃদয় ভাঙে নিউজিল্যান্ডের। ব্ল্যাক ক্যাপসদের কাঁদিয়ে সেবার শিরোপা উৎসব করেছিল ইংলিশরা।

সেই অবিস্মরণীয় ফাইনালের স্মৃতি ফিরিয়ে এনে আজ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম সেমিফাইনালেই মুখোমুখি ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ড। আবুধাবিতে বাংলাদেশ সময় রাত ৮টায় মাঠে গড়াবে সেই ম্যাচ। এবার কী টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে দুঃসহ সেই স্মৃতি ফিরবে? ফের যদি ম্যাচ টাই হয়? আইসিসির অদ্ভূত নিয়মের বলি হবে কিউইরা?

না, এবার সেই নিয়মকে দূরে ঠেলে আইসিসি নতুন নিয়ম চালু করেছে। ২০১৯ সালের সেই আইন নিয়ে তুমুল সমালোচনায় পড়েছিল আইসিসি। সেসব সমালোচনা আর শুনতে রাজি নয় তারা। বাউন্ডারির সেই নিয়মই তুলে দিয়েছে আইসিসি।

আইসিসি জানিয়েছে, আজ আবুধাবিদে দুই বছরে আগের সেই টাই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটলে যথারীতি ম্যাচ গড়াবে সুপার ওভারে। সুপার ওভারও টাই হলে কোনো বাউন্ডারি গণনা হবে না। হবে আরেকটি সুপার ওভার। সেখানেও যদি টাই হয়? তাতে কি? অফুরন্ত সময় আছে। সেমিফাইনাল ও ফাইনালের জন্য রিজার্ভ ডে থাকায় সময় নিয়ে চিন্তা নেই! আবারও সুপার ওভার। এভাবে চলতেই থাকবে। ফলাফল নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত সুপার ওভার চলতেই থাকবে।

আইসিসির এমন নিয়মে হাফ ছেড়ে বাঁচতে পারেন কেন উইলিয়ামসনরা। ছেলেদের মাঝে সেই দুঃসহ স্মৃতি জাগাতে চান না কিউই কোচ গ্যারি স্টিডও। মঙ্গলবার ম্যাচ-পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে তিনি বললেন, ‘২০১৯ বিশ্বকাপ নিয়ে কাউকে কিছু বলতে শুনিনি আমি। ওই ম্যাচের কিছুই এখানে বয়ে আনিনি আমরা।বিশ্বের সেরা দলের বিপক্ষে খেলার চ্যালেঞ্জ নিয়েই ভাবছি এখন।’

তবে সেই স্মৃতি ফিরিয়ে আনতে প্রার্থনায় রত ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক মাইক আথারটন। বললেন, ‘২০১৯ সালের জুলাইয়ের সেই অবিস্মরণীয় সন্ধ্যায় লর্ডসে যে ক্লাসিক লড়াই উপহার দিয়েছিল ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ড, সেই নাটকীয়তার এক শতাংশও যদি এবার থাকে, টি ২০ বিশ্বকাপ ধন্য হয়ে যাবে।’

এসএইচ



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *