কোহলিকে সান্ত্বনা দিলেন সুনীল গাভাস্কার


এলিমিনেটর ম্যাচে কলকাতা নাইট রাইডার্সের কাছে চার উইকেটে হেরে যাওয়ায় আসর থেকে ছিটকে পড়েছে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু। তাতে ধুলিস্মাৎ হয়ে গেছে বিরাট কোহলির নেতৃত্বে তার দলের প্রথমবারের মতো শিরোপা জয়ের স্বপ্ন। অধিনায়ক কোহলির বিদায়ের দিনে সান্ত্বনা দিয়ে ভারতের জনপ্রিয় ধারাভাষ্যকার ও ক্রিকেটার সুনীল গাভাস্কার বলেছেন, শিরোপা জেতার সৌভাগ্য সবার থাকে না। খবর হিন্দুস্তান টাইমসের

এবারের ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) পর বেঙ্গালুরুর অধিনায়কত্ব ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন কোহলি। তাই শিরোপা জিতে অধিনায়ক কোহলির শেষ মৌসুমকে স্মরণীয় করে রাখতে চেয়েছিলেন তার সতীর্থরা। তবে বেঙ্গালুরুর অধিনায়ক হিসেবে কোহলির শেষ ম্যাচটিও আনন্দময় হলো না।

স্টার স্পোর্টসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, সবাই চায় তার শেষটা ভালো হোক। কিন্তু ব্যাপারটা সবসময় নাও হতে পারে। দেখুন, স্যার ড্রন ব্র্যাডম্যানের কী হয়েছিল। তার জীবনের সর্বশেষ ইনিংসে মাত্র চার রান প্রয়োজন ছিল। অথচ কোনো রান না করেই মাঠ থেকে বিদায় নিতে হয়েছিল তাকে। এমনকী শচীন টেন্ডুলকারও শেষে সেঞ্চুরি করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তার ২০০তম ম্যাচে ৭৯ রান করে তিনি অলআউট হয়েছেন।

২০১৩ সাল থেকে এখন পর্যন্ত বেঙ্গালুরুকে ১৪০টি ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়েছেন কোহলি। প্রায় প্রতি আসরেই কোহলি নিজের সেরাটা দিয়ে চেষ্টা করলেও দলীয় পারফরম্যান্সে সামঞ্জস্যতা না থাকায় বার বার শিরোপা বঞ্চিত থেকেছে বেঙ্গালুরু। এই দুর্দিনে কোহলির প্রতি সহমর্মিতা জানিয়েছেন সুনীল গাভাস্কার।

ভারতের এই ব্যাটসম্যান বলেন, এটি অবশ্যই হতাশাজনক। প্রত্যেকেই একটি উচ্চতায় থেকে শেষ করতে চায়। ব্যক্তিগতভাবে আপনি নিজেও একটি বিশেষ উচ্চতায় থেকে শেষ করতে চাইবেন। গল্পের শেষটা সবসময় সেভাবে আসলে হয় না। প্রত্যেকের সেই উচ্চতায় পৌঁছানোর সৌভাগ্য হয় না।

২০১৬ সালে বেঙ্গালুরুর হয়ে এক মৌসুমে ৯৭৩ রান করার কীর্তি গড়েছিলেন কোহলি। তা ছাড়া বেশিরভাগ আসরে রান সংগ্রহের দিক দিয়ে বেঙ্গালুরুর অন্যান্য ক্রিকেটারদের চেয়ে এগিয়ে থাকতেন তিনি। এই প্রসঙ্গটি টেনে কোহলি বেঙ্গালুরুকে অনেক কিছু দিয়েছে বলে উল্লেখ করেছেন গাভাস্কার।

জনপ্রিয় এই ধারাভাষ্যকার বলেন, আরসিবির জন্য সে যা করেছে তা নিয়ে কি কেউ বিতর্ক করতে পারে? ওর মতো পারফরম্যান্স অন্যদের ক্ষেত্রে বিরল। বেঙ্গালুরুর জন্য জন্য সে কি করেছে তা দেখুন। সে বেঙ্গালুরুকে বড় দলের তকমা পেতে সাহায্য করেছে, এক ধরনের ব্র্যান্ড গঠন করেছে যা খুব কম ক্রিকেটারই তাদের ফ্র্যাঞ্চাইজির জন্য করতে পেরেছে।

ডি- এইচএ



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *