বিসিবি নির্বাচন: নাজমুল আবেদিন ফাহিমের নিবাচনী ইশতেহার


আগামী ৬ অক্টোবর বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) কার্যনির্বাহী পর্ষদের নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন কোচ নাজমুল আবেদিন ফাহিম। তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন বোর্ড পরিচালক ও বর্তমান পর্ষদের গেম ডেভেলপমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যানের দায়িত্বে থাকা খালেদ মাহমুদ সুজনের সঙ্গে। নির্বাচনকে সামনে রেখে ভোরের কাগজের সঙ্গে একান্ত আলাপকালে নিবাচনী ইশতেহারের কথা জানান কোচ ফাহিম।

তিনি বলেন, ক্রিকেট সম্পর্কিত কাজে আমার ৩৩ বছরের বহুমুখি অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে এর উন্নয়নে সক্রিয় ভূমিকা রাখার উদ্দেশ্যেই আমার এই প্রয়াস। সবার সহযোগিতায় এই নির্বাচনে জয়ী হলে আমি নিম্নলিখিত বিষয়গুলি নিয়ে বিশেষ ভাবে কাজ করার আশা রাখি। নির্বাচনে জয়ী হলে ক্রিকেট উন্নয়নে নিজের পরিকল্পনার কথা তুলে ধরেন ফাহিম। তার পরিকল্পনার ৭টি বিষয়-

১. ক্রিকেট বোর্ডের সম্মানিত কাউন্সিলরদের বিভিন্ন কার্যক্রমে সম্পৃক্ত করনের মাধ্যমে একটি শক্তিশালী ‘লিডারশিপ গ্রুপ’ তৈরি করা।
২. আঞ্চলিক ক্রিকেট কাঠামোকে সক্রিয় করার মাধ্যমে সার্বিক ক্রিকেট কার্যক্রমকে আরো গতিশীল করা এবং ক্রিকেট কে সত্যিকার অর্থে তৃনমূল পর্যায়ে ছড়িয়ে দেয়া সহ সকল প্রতিযোগিতাকে আরও প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক করা।
৩. ক্রিকেট মাঠ, ইনডোর, জিম ইত্যাদি সহ বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধির মাধ্যমে দেশব্যাপী ক্রিকেট কাঠামোর উন্নয়ন।
৪ . ক্রিকেটের সাথে সম্পৃক্ত মানব সম্পদ এর গুনগত মান বৃদ্ধি করার মধ্য দিয়ে বিদেশিদের উপর নির্ভরশীলতা কমানো।
৫ . বিশ্ববিদ্যালয়, শিক্ষা বোর্ড সহ অন্যান্য সংস্থা সমূহ কে ক্রিকেটের মূল ধারায় সংযুক্ত করার মধ্য দিয়ে শিক্ষিত ক্রিকেটার গড়ে তোলা এবং তাদের কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরী করা।
৬ . নারী ক্রিকেটের যথাযথ মূল্যায়ন এবং এর কার্যক্রমকে সর্বোপরি
আরো গতিশীল করা।
৭ . সবার জন্য ক্রিকেট’ এই ধারনা টি দেশব্যাপী ছড়িয়ে দেয়া।

এছাড়া সুজনের বিষয়ে তিনি বলেন, এটা আসলে টক্কর না। এটা ভালো জিনিস যে আমরা যারা অংশ নিচ্ছি তারা সবাই যোগ্য। আমার সাথে সুজনের দেখা হয়েছে। তাকে আমি শুভকামনা জানিয়েছি, সে-ও আমাকে শুভকামনা জানিয়েছে। আমি আশা করি একটা ভালো পরিবেশে নির্বাচন হবে।

মনোনয়ন পত্র তুলে গণমাধ্যমে নাজমুল আবেদিন ফাহিম বলেন, ‘আমি এর আগে দুইবার কাউন্সিলর ছিলাম, বিসিবিতে আসার আগে, যখন বিকেএসপিতে ছিলাম। আগেও সুযোগ হয়েছিল (নির্বাচন করার) তবে অন্য একজনের জন্য ত্যাগ স্বীকার করেছিলাম। আমার মনে হয় এতদিন কাজ করার পর আমার ভালো ধারণা আছে বাংলাদেশের ক্রিকেটের জন্য কি করা দরকার। সেটাতে দৃষ্টি রেখেই আমি মিড লেভেল কিছু কাজ করার চেষ্টা করেছি।’

সম্প্রতি বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বোর্ডে নতুন প্রতিনিধিদের দেখার অভিপ্রায় ব্যক্ত করেছিলেন। ফাহিম মনে করছেন, তার নির্বাচনে অংশগ্রহণের মাধ্যমে সেই পথ সুগম হল। তিনি জানান, ‘সভাপতি কয়েকদিন আগেই বলেছিলেন, তিনি নতুন মুখ দেখতে চান, নতুন ধারণা চিন্তাভাবনা চান। আমি সুযোগ পেলে নতুন ভাবনা নিয়ে আসতে পারব। আমি আসলে টেবিলে নতুন কিছু দিতে পারব যা বাংলাদেশের ক্রিকেটের জন্য কাজে লাগবে।’

এসএইচ



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *