নেপালিদের চোখে শের-ই-বাংলা তামিম – Bhorer Kagoj


আবুল কাশেম ফজলুল হক যাকে সবাই চেনেন শের-ই-বাংলা নামে। যার অর্থ হলো বাংলার বাঘ। বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার আগে পাকিস্তানের প্রথম বাঙালি প্রধানমন্ত্রী ছিলেন তিনি। তার সাহস ও ক্ষীপ্রতার কারণে তাকে বাংলার বাঘ উপাধি দেয়া হয়েছিল।

এবার ক্রিকেটে শের-ই-বাংলার উপাধি পেলেন দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবাল। বিশ্বকাপ থেকে সরে দাঁড়িয়ে তিনি নাম লিখিয়েছেন নেপালের ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক টি-টোয়েন্টি প্রতিযোগিতা এভারেস্ট প্রিমিয়ার লিগে। বাইরাহাওয়া গ্ল্যাডিয়েটর্স নামক একটি দলের হয়ে খেলবেন তিনি। বাংলাদেশের অন্যতম সফল খেলোয়াড় তিনি। তাই তাকে বাংলার বাঘ হিসেবে উপাধিই দিয়ে দিল নেপালের ক্রিকেট।

আর তামিমকে পেয়ে এই ফ্র্যাঞ্চাইজিটিতো খুশিই সঙ্গে পুরো টুর্নামেন্ট কর্তৃপক্ষ বেশ খুশি। তামিম যখন বাইরাহাওয়া গ্ল্যাডিয়েটর্সের সঙ্গে চুক্তি সম্পন্ন করেন তখন তাকে শের-ই-বাংলা বা বাংলার বাঘ বলে অভিহিত করে প্রতিযোগিতাটির কর্তৃপক্ষ। তামিমকে পেয়ে নেপালের দর্শকরাও বেশ খুশি। কারণ তার মতো এমন বড় একজন তারকা ক্রিকেটার নেপালের লিগে খেলবেন এটিই তাদের জন্য অনেক বড় পাওয়া।

আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর থেকে কাঠমান্ডুর দশরথ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শুরু হবে এ প্রতিযোগিতা। আর তাই এখন নিজেকে প্রস্তুত করতে কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন তামিম। রবিবার মাঠে ফিরেছেন ওয়ানডে অধিনায়ক ও হার্ডহিটার তামিম। রবিবার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে নেট বোলারদের নিয়ে ব্যাটিং অনুশীলন করেছেন তিনি। হাঁটুর চোটে পড়ে জিম্বাবুয়ে সফরের ওয়ানডে সিরিজের পর থেকেই খেলার বাইরে ছিলেন তিনি। সম্পূর্ণ সুস্থ হতে তামিমের ৮-১০ সপ্তাহ বিশ্রাম দরকার ছিল। আর এ বিশ্রামের কারণে তিনি অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজটিতে খেলতে পারেননি। এরপর নিজেকে সরিয়ে নেন বিশ্বকাপ থেকে।

যখন বাংলাদেশ দল থেকে বলতে গেলে বিছিন্ন ছিলেন ঠিক সেই সময়ই নিজের ফেসবুক পেজে তাকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দলে না রাখার কথা বলে দেন নির্বাচকদের। জানা গেছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের খসড়া দলটি নির্বাচকেরা গড়েছিলেন তামিমকে রেখেই। কিন্তু ফেসবুকের ওই ভিডিও বার্তার পর তাকে বাদ দিয়েই ঘোষণা করা হয় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দল।

নেপাল যাওয়ার আগে নিজেকে প্রস্তুত করতে রবিবার মাঠে নামেন তামিম ইকবাল।

এখন তাই তামিমের সব চিন্তা এভারের প্রিমিয়ার লিগ নিয়ে। জানা গেছে, ২৩ সেপ্টেম্বরে নেপালের এ ক্রিকেট লিগটিতে খেলতে দেশ ছাড়বেন তিনি। এই লিগটিতে খেলার জন্য বিসিবি থেকে অনাপত্তিপত্রও নিয়ে রেখেছেন তিনি। আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর থেকে ৯ অক্টোবর এভারেস্ট প্রিমিয়ার লিগ (ইপিএল) নামের সেই টুর্নামেন্টটি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। এ প্রতিযোগিতায় তামিম ছাড়াও বেশ কয়েকজন বড় তারকা খেলবেন। তাদের মধ্যে রয়েছেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদিও। ক্রিকেটকে নেপালে আরো বেশি জনপ্রিয় করে তোলার জন্য এ প্রতিযোগিতাটির আয়োজন করছে নেপালের ক্রিকেট বোর্ড। এই প্রতিযোগিতায় নেপাল জাতীয় দলের ও স্থানীয় খেলোয়াড়রা অংশ নেবেন। সঙ্গে বেশ কয়েকজন নামকরা বিদেশী তারকা থাকবেন।

সাকিব আল হাসানের পর বাংলাদেশ থেকে তামিম ইকবাল সবচেয়ে বেশি বিদেশি ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে খেলেছেন। তামিম খেলেছেন পিএসএল, আইপিএল, ইংল্যান্ডের কাউন্টি ক্রিকেটে, ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে ও আইসিসির বিশ্ব একাদশে, এশিয়া একাদশে। ফলে বিদেশি লিগগুলোতে খেলার অনেক অভিজ্ঞতা রয়েছে তার।

তামিম ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে খেলেছেন পুনে ওয়ারিয়র্স ইন্ডিয়ার হয়ে। পাকিস্তান সুপার লিগে খেলেছেন লাহোর কালান্দার্স, পেশোয়ার জালমির হয়ে। অপরদিকে কাউন্টি ক্রিকেট খেলেছেন নটিংহ্যামশায়ারের হয়ে। ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে খেলেছেন সেন্ট লুসিয়া জুকসের হয়ে। আর ঘরোয়া প্রতিযোগিতাগুলোর মধ্যে তামিম খেলেছেন দুরন্ত রাজশাহী, ফরচুন বরিশাল, ঢাকা প্লাটুন ও চট্টগ্রাম বিভাগের হয়ে।

এমন অভিজ্ঞতা নিয়ে তামিম এখন নেপালের লিগে খেলবেন। ফলে তিনি নিজে যেমন খেলে স্বাচ্ছন্দ বোধ করবেন। তেমনই নেপালের ক্রিকেটও তার দ্বারা উপকৃত হবে। তামিম যেহেতু বিশ্বকাপেও খেলবেন না। তাই প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে থাকার জন্য তিনি নেপালের লিগে খেলতে যাচ্ছেন। এখন দেখার বিষয় সেখানে তিনি কেমন করেন।

রি-এসএস/ইভূ



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *