শ্রীদেবীকে ছেড়ে থাকার যন্ত্রণা জাহ্নবীর


২০১৮ সালে শ্রীদেবীর অকাল মৃত্যু মেনে নিতে পারেনি গোটা দেশ। ২৪ ফেব্রুয়ারির সকালে যেন থমকে গিয়েছিল গোটা দেশ। তারপর থেকে আমূল বদলে গিয়েছে জাহ্নবী কাপুরের জীবনও। তখন বেশ খবরে অভিনেত্রী। চলছে তাঁর ডেবিউ ছবি ‘ধড়ক’-র শ্যুটিং। মুম্বইতে ছিলেন তিনি। বোন খুশির সঙ্গে মা (শ্রীদেবী) গিয়েছিল দুবাই। খুশি ফিরে আসেন দু’দিন পর। পরে স্ত্রী-কে সঙ্গ দিতে গিয়েছিলেন বনি কাপুরও। কিন্তু ফেরা হয়নি শ্রীদেবীর। বাথটবে ডুবে মারা যান অভিনেত্রী। শেষ ক’দিন মাকে দেখতে না পাওয়ার যন্ত্রণা এখনও ভুলতে পারেন না তিনি। খবর হিন্দুস্তান টাইমস।

জাহ্নবী চিরকালই ‘মাম্মাস গার্ল’। সকালে উঠেই নাকি প্রথমে মায়ের মুখ দেখতেন। মা ছিল তাঁর সবচেয়ে কাছের বন্ধু। মা-কে ছাড়া বেশ কিছু বছর কাটিয়ে ফেলেছেন তিনি। কিন্তু হারানোর যন্ত্রণা যে এখনও একইরকম আছে তা বুঝিয়ে দিল জাহ্নবীর সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট। মায়ের জন্মদিন উপলক্ষে ছোটবেলায় শ্রীদেবীর সঙ্গে তোলা একটা ছবি শেয়ার করে তিনি লিখলেন, ‘হ্যাপি বার্থ ডে মাম্মা। তোমাকে খুব মিস করি। তোমার জন্যই তো সবকিছু, সব দিন, সব সময়। তোমায় খুব ভালোবাসি।’

মায়ের মৃত্যুর পর জাহ্নবী বলেছিলেন, ‘আমি এখনও শকে আছি। মা চলে যাওয়ার ৩-৪ মাস কীভাবে কাটিয়েছি, মনে পড়ে না আমার।’ তবে, শ্রীদেবী মারা যাওয়ার পর বনি কাপুর আর খুশি ও জাহ্নবী-কে একপ্রকার আগলে রেখেছেন অর্জুন কাপুর। পুরনো ঝামেলা ভুলে দুই বোন-এর পাশে থেকেছেন। অংশুলা-র মতোই খেয়াল রাখেন তিনি এই দুই বোনেরও।

জানা যায়, জাহ্নবীর ২১তম জন্মদিনের জন্য শপিং করবেন বলেও ঠিক করেছিলেন শ্রীদেবী। মেয়ের ডেবিউ ছবি নিয়ে ছিল গুচ্ছের পরিকল্পনা। কিন্তু তার কোনওটাই পূরণ হয়নি। মেয়েকে বড় পরদায় দেখার সাধ মেটার আগেই চলে গিয়েছেন না ফেরার দেশে!

ডি-ইভূ



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *