লর্ডসে চালকের আসনে ভারত – Bhorer Kagoj


ভারত-ইংল্যান্ড পাঁচ ম্যাচ টেস্ট সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে লর্ডসে চালকের আসনে ভারত। রোহিত শর্মার ৮৩ ও রাহুলের ১২৭ রানের সুবাধে প্রথম দিন ভালোই আধিপত্য করেন ভারত। বৃহস্পতিবার দিন শেষে প্রথম ইনিংসে ভারতের সংগ্রহ ছিল তিন উইকেট হারিয়ে ২৭৬ রান। শুক্রবার (১৩ আগস্ট) ৩৬.১ ওভারে অবশিষ্ট ৭ উইকেট হারিয়ে মাত্র ৮৮ রান সংগ্রহ করে। ফলে ১২৬.১ ওভারে ৩৬৪ রানে গুটিয়ে য়ায় ভারতের ইনিংস। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ইংল্যান্ড ২২.৩ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে ৩৯ রান তুলেছে। লর্ডসে ইংল্যান্ড এখনো ৩২৫ রানে পিছিয়ে রয়েছে। স্বাগতিকদের যে ২টি উইকেটের পতন ঘটেছে তা তুলে নিয়েছেন পেসার মোহাম্মদ সিরাজ।

এর আগে টসে হেরে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত ইংল্যান্ড খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি। প্রথম উইকেট এর দেখা পেতে ভালোই ঘাম জড়াতে হয়েছে ইংলিশদের। ভারতের প্রথম উইকেট ভাঙতে অপেক্ষা করতে হয়েছে ৪৩.৪ ওভার। ১২৬ রানের ভারতে প্রথম জুটি ভাঙে জেমস অ্যান্ডারসনের বলে। ৮৩ রান করে আউট হয়ে প্যাভিলিয়নের পথে পা বাড়ানোর আগে ১৪৫ বল খেলেন রোহিত শর্মা। এরপর চেতশ্বর পূজারা ৯ রানে অ্যান্ডারসনের এবং ৪২ রানে ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি রবিনসনের শিকার হয়ে মাঠ ছাড়লেও একপাশ আগলে রাখেন লোকেশ রাহুল। প্রথম দিন শেষ করার আগে ১২৭ রানে অপরাজিত ছিলেন তিনি।

এদিকে শুক্রবার দ্বিতীয় দিনের শুরুতেই হোঁচট খায় ভারত। প্রথম দিন চড়াও হওয়া ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের ওপর দ্বিতীয় দিনে প্রথম সেশনে চড়াও হন ইংল্যান্ডের বোলাররা। ১২৭ রানে প্রথম দিন শেষ করা রাহুল দ্বিতীয় দিনে স্কোর বোর্ডে দুই রান যোগ করতেই শিকার হন রবিনসনের। ২৫০ বল খেলে ১২৯ রানে থামে রাহুলের ব্যাট। এরপর দলীয় ২৮২ রানে আবার আঘাত হানেন জেমস অ্যান্ডারসন। নিজের নামের পাশে এক রান করে সাজঘরে ফিরেন আজিঙ্কা রাহানে। এর পর অবশ্য জাদেজাকে নিয়ে আবার ম্যাচের হাল ধরেন উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান ঋসভ পন্ত। ষষ্ঠ উইকেটে জাদেজার সঙ্গে ৪৯ রানের জুটি গড়ে ব্যক্তিগত ৩৭ রানে পন্ত শিকার হন মার্ক উডের। এরপর দলীয় ৩৩৬ রানে আবার উইকেটের পতন ঘটে মইন আলীর বলে। শূন্য রানেই শামিকে সাজঘরে ফেরান মইন। এরপর ইশান্তকে নিয়ে জাদেজা আবার ভারতের রানের চাকা সচল রাখেন। ইংল্যান্ড বোলারদের মধ্যে ৫টি উইকেট নেন জেমস অ্যান্ডারসন। আর দুই উইকেট যায় ওলি রবিনসনের ঝুলিতে। একটি করে উইকেট নেন মার্ক উড ও মইন আলী।

এদিকে লর্ডসে তৃতীয় ভারতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে অনার্স বোর্ডে ভিনু মানকড় ও রবি শাস্ত্রীর পাশে নাম লিখালেন লোকেশ রাহুল। ২৫০ বলে ১২৯ রান করে শুক্রবার লোকেশ রাহুল আউট হয়ে মাঠ ছাড়েন। এর আগে ১৯৫২ সালে ভারতের ওপেনারদের মধ্যে লর্ডসে প্রথম সেঞ্চুরি তুলে নেন ভিনু মানকড়। ১৮৬ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলে মানকড় প্রথম ভারতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে লর্ডসে ইতিহাস হয়ে রয়েছেন। এর ঠিক ৩৮ বছর পর দ্বিতীয় ওপেনার হিসেবে সেখানে সেঞ্চুরির দেখা পান বিরাট কোহলিদের বর্তমান কোচ রবিশাস্ত্রী। আর বৃহস্পতিবার ৩১ বছর পর তৃতীয় ওপেনার হিসেবে সেঞ্চুরির দেখা পেলেন লোকেশ রাহুল।

এদিকে লর্ডসে আরো একটি কৃতিত্ব গড়লেন রাহুল। নিজের ক্যারিয়ারে ষষ্ঠ টেস্ট সেঞ্চুরি তুলে নাম লিখিয়েছেন নিজ দেশের আরেক ব্যাটসম্যান শেহওয়াহের পাশে। এশিয়ার বাইরে চারটি শতরান এলো রাহুলের ব্যাট থেকে। দুটি ইংল্যান্ডের মাটিতে, একটি করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও অস্ট্রেলিয়ায়। এশিয়ার বাইরে বীরেন্দ্র শেহওয়াগ ৫৯ ইনিংসে চারটি টেস্ট শতরান করেছেন ওপেনার হিসেবে। যেখানে এশিয়ার বাইরে রাহুলের চারটি টেস্ট শতরান এলো মাত্র ২৮টি টেস্ট ইনিংসে। ভারতীয় ওপেনারদের মধ্যে এশিয়ার বাইরে খেলে সবচেয়ে বেশি ১৫টি শতরান রয়েছে সুনীল গাভাস্কার, ৮১টি ইনিংসে। এদিকে ২০১১ সালের পর এই প্রথম এশিয়ার বাইরে টেস্টে ভারতের ওপেনিং জুটি ১০০ রান পার করল। বৃহস্পতিবার সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে রোহিত শর্মা ও লোকেশ রাহুলের ওপেনিং জুটিতে আসে ১২৬ রান।

অন্যদিকে রান খরায় ভুগছেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ২০১১ সালে টেস্টে অভিষেক হওয়া বিরাট কোহলির ব্যাট কখনো কাঁদেনি। ২৭টি টেস্ট সেঞ্চুরির মালিক কোহলি শেষ সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছিলেন ২০১৯ সালে বাংলাদেশের সঙ্গে। এরপর দুই বছর আর টেস্টে সেঞ্চুরির দেখাতো পাচ্ছেনই না, হতে পারছেন না ব্যাটিংয়েও থিতু। নিউজিল্যান্ড এর সঙ্গে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনালে ৪৪ এবং ১৩ রানের ইনিংসের পর ইংল্যান্ড এর সঙ্গে শুরু করেছিলেন শূন্য রানে। চলতি সিরিজের পরের ইনিংসে অবশ্য ভারত অধিনায়ক ফিফটির দেখা পেয়েছিলেন। যা তার টেস্টে শেষ ১০ ইনিংসে দ্বিতীয় ফিফটি। কিন্তু সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে যেখানে রাহুল, রোহিতরা রান পাচ্ছেন সেখানে কোহলি ফিরে গেলেন ৪২ রান করে।

এসএইচ



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *