পরী মনিকে বাঁচাতে আদালতে ছুটে এলেন নায়ক!


মাকদকাণ্ডে গ্রেপ্তারের পর থেকে সংবাদ শিরোনামে বাংলাদেশি চলচ্চিত্রের অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেত্রী পরী মনি। শুক্রবার ফের নায়িকার জামিনের আবেদন খারিজ করে দেয় ঢাকা মহানগর হাকিম আদালত। এদিন আদালতে পরী মনির হয়ে সওয়াল করেন আইনজীবী মুজিবর রহমান। তবে মুজিবর রহমানের নেতৃত্বে আট সদস্যের আইনজীবী দলের প্রধান তিন সহকারীর অন্যতম ছিলেন অভিনেতা আমান রেজা। হ্যাঁ, ঢালিউডের এই নায়ক আদালতে পরীমনির হয়ে মামলা লড়ছেন।

দেশজুড়ে যখন পরী মনিকে নিয়ে বিতর্কের ঝড় তখন সহকর্মীর পাশে দাঁড়িয়েছেন আমান। তিনি বাংলাদেশের সংবাদমাধ্যমকে জানান, ‘নায়কের কাজ হলো নায়িকার পাশে দাঁড়ানো সহকর্মী ও সহযোদ্ধার জন্য লড়তে পারাটা দায়িত্বের পাশাপাশি এক রকম তৃপ্তিরও’। আমান যোগ করেন, ‘আমি চলচ্চিত্রবিষয়ক কয়েকটি মামলায় এর আগেও লড়েছি। আদালতে দাঁড়ানো শুধু পেশাগত দায়িত্ব নয়, চলচ্চিত্রের প্রতি এক রকম দায়বোধের ব্যাপারও কাজ করেছে’।

এদিন পরীমনির আইনজীবী মজিবুর রহমান আদালতকে জানান, পরী মনি ‘ভার্টিগো’ এবং ‘প্যানিক অ্যাটাক’-এর রোগী। দীর্ঘসময় ধরে পুলিশ হেফাজতে অমানবিক নির্যাতনের শিকার হতে হয়েছে তাঁকে, মানবাধিকার লঙ্ঘনেরও অভিযোগ তোলেন তিনি। জরুরি চিকিৎসার স্বার্থে পরী মনিকে জামিনে মুক্তি দেওয়া হোক, দাবি তোলেন আইনজীবী। পাশাপাশি পরী মনি জেলে থাকলে চলচ্চিত্র ব্যবসার অনেক ক্ষতি হবে সেই যুক্তিও খাঁড়া করবার চেষ্টা চালানো হয়। কিন্তু জামিন না-মঞ্জুর করে আদালত।

সিআইডির তরফে জামিনের বিরোধিতা করে শুরুতেই বলা হয়, ‘মামলার তদন্ত সম্পন্ন না হওয়া পর্যন্ত আসামি শামসুন্নাহার স্মৃতি ওরফে স্মৃতিমণি ওরফে পরীমণিকে জেলহাজতে রাখা প্রয়োজন’। পরীমনি জামিনে মুক্তি পেলে মামলার তদন্তে বিঘ্ন সৃষ্টি হতে পারে, এমনকি পরীমনি ফেরার হতে পারেন এমনও আশঙ্ক্ষা প্রকাশ করে সিআইডি। আপতত কাশিমপুর জেলে বন্দি ঢালিউডের অন্যতম সুন্দরী নায়িকা পরী মনি, গত ৪ঠা অগস্ট ঢাকার বনানীর বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার হন পরী মনি।

ডি-এসএইচ



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *