শনিবার থেকে সব ইউনিয়নে করোনার গণটিকা


দেশের সব ইউনিয়নে ৭ আগস্ট থেকে করোনা ভাইরাসের টিকা দেওয়া হবে। এই কর্মসূচিতে তিন শ্রেণির জনগোষ্ঠীকে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। তারা হলেন, ২৫ বছর বা তদুর্ধ্ব জনগোষ্ঠী, অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পঞ্চাশোর্ধ্ব বয়স্ক জনগোষ্ঠী ও শারীরিক প্রতিবন্ধী এবং দুর্গম ও প্রত্যন্ত অঞ্চলের জনগোষ্ঠী।

শুক্রবার (৬ আগস্ট) সকালে মহাখালীতে বাংলাদেশ কলেজ অব ফিজিশিয়ানস এন্ড সার্জনস (বিসিপিএস) এর সভা কক্ষে করোনা ভাইরাসের টিকা কার্যক্রম নিয়ে আয়োজিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ কথা জানানো হয়। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম।

সংবাদ সম্মেলনে জানান, ৭ আগস্ট দেশব্যাপী করোনার টিকাদান কার্যক্রম শুরু হবে। এই দিন ইউনিয়ন, পৌরসভা ও সিটি কর্পোরেশনে টিকা কার্যক্রম চলবে। এছাড়া ৮ ও ৯ আগস্ট দুর্গম এলাকায় এবং ১০ ও ১২ আগস্ট জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত মায়নমার জনগোষ্ঠী ও বয়োজেষ্ঠ্যদের মাঝে টিকা কার্যক্রম চলবে।

ইউনিয়ন পর্যায়ে টিকা কার্যক্রমকে একটি পাইলট প্রকল্প উল্লেখ করে তিনি বলেন, প্রত্যন্ত অঞ্চলে এক দিনে কত পরিমাণে টিকা দিতে আমরা সক্ষম সেটি দেখতে চাই। প্রাথমিকভাবে ৭ থেকে ১২ আগস্টের মধ্যে ৩২ লাখ মানুষকে টিকার আওতায় আনার পরিকল্পনা রয়েছে আমাদের।

সারা দেশের ৪ হাজার ৯০০টি ইউনিয়নে ১ হাজার ৪৪টি পৌরসভায় এবং সিটি কর্পোরশেন এলাকার ৪০৩টি ওয়ার্ডে ৩২ হাজার ৭৮৬ জন টিকাদানকারী এবং ৪৮ হাজার ৪৫৯ স্বেচ্ছাসেবীর মাধ্যমে একযোগে এই কর্মসূচি পরিচালিত হবে।

ডি-এফবি



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *