রাজধানীর ৭ চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান বন্ধের নির্দেশ


নানা অনিয়মের অভিযোগে রাজধানীর ৭টি বেসরকারি চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানের সব কার্যক্রম বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এসব অনিয়মের মধ্যে রয়েছে পরীক্ষা-নিরীক্ষায় নিয়ম বহির্ভূতভাবে বেশি মূল্য রাখা, সনদ প্রাপ্ত চিকিৎসক না থাকা এবং একই আইসিইউ-তে কোভিড ও নন-কোভিড রোগীর চিকিৎসা ইত্যাদি।

মঙ্গলবার (১০ আগস্ট) স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে এক বিজ্ঞপ্তি দিয়ে এ নির্দেশ দেওয়া হয়। একই সঙ্গে ওই সকল হাসপাতালের লাইসেন্স কেন বাতিল হবে না জানতে চেয়েও কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছে।

হাসপাতালগুলো হলো- প্রাই অর্থোপেডিক ও জেনারেল হসপিটাল এন্ড ডিজিটাল ডায়াগনিষ্টিক সেন্টার, ঢাকা হেলথকেয়ার হসপিটাল, রিমেডি কেয়ার লিমিটেড, লাইফ কেয়ার জেনারেল হসপিটাল, যমুনা জেনারেল হসপিটাল, লাইফ কেয়ার জেনারেল হসপিটাল, রয়াল মাল্টিকেয়ার স্পেশালটি হসপিটাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার, রাজধানী ব্লাড ব্যাংক অ্যান্ড ট্রান্সফিউশন সেন্টার।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ঢাকার মোহাম্মদপুরের মুক্তিযোদ্ধা টাওয়ারে অবস্থিত ৬টি প্রাইভেট ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার এবং ১টি ব্লাড ব্যাংক সহ মোট ৭টি প্রতিষ্ঠান গত ২৮ জুলাই আকস্মিক পরিদর্শনে নানাবিধ অনিয়ম পরিলক্ষিত হয়। প্রাপ্ত অনিয়মের ভিত্তিতে মহাপরিচালকের অনুমোদন সাপেক্ষে ৭টি প্রতিষ্ঠানকে সব কার্যক্রম বন্ধ রাখার নির্দেশ প্রদান করা হলো এবং কেন তাদের লাইসেন্স বাতিল হবে না মর্মে কারণ দর্শানো নোটিশ জারি করা হয়েছে।

এর আগে গত ২ আগস্ট করোনা পরীক্ষায় অনিয়মের প্রমাণ পাওয়ায় রাজধানীর প্রাভা হেলথকেয়ার এর কার্যক্রম সাময়িক বন্ধের নির্দেশ দিয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। চিঠিটি প্রাভা হেলথকেয়ারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বরাবর পাঠিয়ে বলা হয়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের গঠিত তদন্ত কমিটি ওই প্রতিষ্ঠানটি পরিদর্শন করে বিভিন্ন অনিয়ম দেখতে পেয়েছে, যা অগ্রহণযোগ্য। এ অবস্থায় তদন্ত কমিটির দেওয়া প্রতিবেদনের আলোকে প্রতিষ্ঠানটির কার্যক্রম সাময়িক স্থগিত করা হল।

আর-এসডি/এসএইচ



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *