অজিদের ১২৩ রানের লক্ষ্য দিল বাংলাদেশ


অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে পঞ্চম ও শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে সোমবার (৯ আগস্ট) টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ের সিদ্বান্ত নেন টাইগার দলপতি মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ব্যাট হাতে শুরুটা ভালই করে টাইগাররা। আজ নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট খুইয়ে ১২২ রান তুলতে সক্ষম হয় বাংলাদেশ। এই রানের জবাবে কেমন লড়াই করে অজিরা তা এখন দেখার বিষয়।

এদিকে হাঁটুর ইনজুরির কারণে তামিম ইকবাল না থাকায় টাইগারদের ওপেনিং জুটি নিয়ে দুশ্চিন্তা ছিল আগের চার ম্যাচেই। বিশেষ করে সৌম্য সরকার দলকে বিপদে ফেলে বারবার আউট হচ্ছিলেন শুরুতেই। তাই তাকে আজ দলে রাখলেও ওপেনিং থেকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে। সৌম্যর বদলে সিরিজের শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে নাইম শেখের সঙ্গে ওপেন করতে নামেন মাহেদি হাসান। এমনকি প্রথম তিন ওভারেই তারা দুজন ৩৩ রান তুলেছেন।

তবে তাদের ২৭ বলে ৪২ রানের ঝড়ো জুটিটি শেষ পর্যন্ত থেমেছে মাহেদির ব্যাটের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে। ইনিংসের পঞ্চম ওভারে অসি অফস্পিনার অ্যাটশন টার্নারকে সম্ভবত ব্যাকফুটে গিয়ে পুল খেলতে চেয়েছিলেন মাহেদি। কিন্তু হাত থেকে তার ব্যাট ছুটে যায়, আর বল উঠে যায় ওপরে। মিডউইকেটে দাঁড়িয়ে সহজেই ক্যাচ নেন অ্যাশটন অ্যাগার। ফলে দারুণ শুরুর পর মাহেদি আউট হন ১৩ বলে ১২ রান করে। এরপর ক্রিজে থিতু হয়েও ইনিংস লম্বা করতে পারেননি নাঈম। ড্যান ক্রিস্টিয়ানের বলে রিভার্স সুইপ খেলতে চেয়েছিলেন, কিন্তু ধরে পড়ে পয়েন্টে অ্যাগারের হাতে। ১ চার ও ১ ছয়ে ২৩ বলে ২৩ রান করেন নাঈম। তৃতীয় উইকেটে লড়াই করার আভাস দিয়েও ব্যর্থ হন সাকিব। তিনি ১১ রান করে সাজঘরে ফিরেন। তবে আজ সৌম্য ভালো খেলবে এমন প্রত্যাশা ছিল টাইগার ভক্তদের। কিন্তু আজও হলো না। পঞ্চম ম্যাচে এসে সৌম্য ১৬ রান করে ফিরলেন সাজঘরে।

চলতি সিরিজে এটাই তার সর্বোচ্চ রান। ড্যান ক্রিস্টিয়ানকে লং অফে উড়িয়ে মারতে গিয়ে ধরা পড়েন টার্নারের হাতে। ১৮ বলে ১৬ রান করেন এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। এরপর তাড়াহুড়ো করে খেলতে গিয়ে আউট হন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। অ্যাগারের শর্ট লেন্থের বলে তুলে দেন তার হাতেই। ১৪ বলে ১ ছয়ের মারে ১৯ রান করেন টাইগার অধিনায়ক। এরপর নাথান এলিসের বলে নুরুল হাসান সোহান সজোরে হাঁকিয়েছিলেন লেগ সাইডে। কিন্তু বল ব্যাটে লেগে সরাসরি যায় স্ট্যাম্পে। আউট হবার আগে ১৩ বলে ৮ রান করেন সোহান। এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে টাইগাররা



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *