কোপা আমেরিকা চ্যাম্পিয়ন মেসির আর্জেন্টিনা – শেয়ার বিজ


ক্রীড়া ডেস্ক : অবশেষে ২৮ বছর পর শিরোপার স্বাদ পেল আর্জেন্টিনা। রোববার বাংলাদেশ সময় ভোরে কোপা আমেরিকার ফাইনাল ব্রাজিলকে ১-০ গোলে হারিয়ে শিরোপা উল্লাসে মেতে উঠেছে।

মারাকানা স্টেডিয়ামে রোববার ম্যাচের ২১তম মিনিটেই আর্জেন্টিনা এগিয়ে যায় ডি মারিয়ার গোলে। শেষ পর্যন্ত তার গোলেই দীর্ঘ ২৮ বছর পর কোন টুর্নামেন্টের শিরোপা নিজেদের করে নিলো আর্জেন্টিনা।

রোববার শুরু থেকেই আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিলের মধ্যে কোপার শিরোপা লড়াই জমে ওঠে। তবে ২১তম মিনিটে ঠিকই প্রথম সুযোগ কাজে লাগায় আর্জেন্টিনা। সে সময় নিজেদের নিজেদের অর্ধ থেকে রদ্রিগো দে পলের পাস পেয়ে যান ডি মারিয়া। মাঝ পথে বল থামানোর সুযোগ ছিল রেনান লোদির, পারেননি তিনি। পিএসজি মিডফিল্ডার বল রিসিভ করে আগুয়ান গোলরক্ষকের মাথার ওপর দিয়ে পাঠান জালে।

এগিয়ে যাওয়ার পর আরও আক্রমণের ধার বাড়িয়ে দেয় আর্জেন্টিনা। এ সুবাদে ম্যাচের ২৯তম মিনিটে ডি-বক্সের বাইরে থেকে বাঁকানো শট নেন ডি মারিয়া। তবে ব্লক করেন ব্রাজিল অধিনায়ক চিয়াগো সিলভা। চার মিনিট পর ডি-বক্সের বাইরে থেকে শট নেন মেসি। কিন্তু লক্ষ্যে রাখতে পারেননি তিনি।

বিরতির আগে সমতায় ফেরার দারুণ সুযোগ পেয়েছিল ব্রাজিল। কিন্তু সে সুযোগ নষ্ট করেন  লুকাস পাকেতা।  যে কারণে ১-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় আর্জেন্টিনা।

দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে নেমেই একের পর এক জোরাল আক্রমণ করতে থাকে ব্রাজিল। যার সুবাদে ম্যাচের ৫২ মিনিটেই দলটির পেয়ে যায় গোল। উল্লাসও প্রায় শুরু করে দিয়েছিল দলটি। কিন্তু তার আগেই অফসাইডের বাঁশি। গোল করার আগে ডি-বক্সের মধ্য রিচার্লিসন অফসাইডের জালে জড়ান। যে কারণে ঐ গোলটি বাতিল করেন রেফারি। তাতে আর্জেন্টিনা শিবিরে ফেরে স্বস্তি।

এদিকে ম্যাচের ৫৫ মিনিটে মার্টিনিজের দারুণ সেভে রক্ষা পায় আর্জেন্টিনা। ডান দিক থেকে নেইমারের বাড়ানো বলে শট নিয়েছিলেন রিচার্লিসন। কিন্তু মার্টিনেজকে ফাঁকি দিতে পারেনি বল। এরপর ম্যাচের ৮৭ মিনিটে আবারও আর্জেন্টিনার দুর্গ হয়ে দাঁড়ান মার্টিনেজ। যে কারণে ২৮ বছর পর ব্রাজিলকে হারিয়েই কোন শিরোপা উৎসবে মাতে আর্জেন্টিনা। সেই সঙ্গে আক্ষেপ ঘুচলো লিওনেল মেসিরও। ক্যারিয়ারের একমাত্র আক্ষেপ ছিল দেশের হয়ে একটি ট্রফি; সেটাও হয়ে গেলো চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিলকে হারিয়ে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *