করোনার কাছে হেরে গেলেন ভারতের কিংবদন্তি স্প্রিন্টার মিলখা সিং


ভারতের কিংবদন্তি স্প্রিন্টার মিলখা সিংয়ের জীবনাবসান হল। সম্প্রতি করোনা আক্রন্ত হওয়া মিলখা সিংকে চণ্ডীগড়ের একটি হাসপাতালের কোভিড ইনসেনটিভ কেয়ার ইউনিটে রাখা হয়েছিল। সেখানেই তার মৃত্যু হয়। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯১ বছর। মিলখা সিংয়ের মৃত্যুর খবর তার পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয় সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে।

গত মাসেই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন ফ্লাইং শিখ মিলখা। পরে তার স্ত্রী নির্মল কাউরও করোনায় আক্রান্ত হন। প্রায় তিন সপ্তাহ করোনার সঙ্গে লড়াই করার পর মারা যান মিলখা সিংয়ের স্ত্রী। সপ্তাহ ঘোরার আগেই মৃত্যু হল কিংবদন্তি অ্যাথলেটের। খবর হিন্দুস্তান টাইমসের।

কোভিড থেকে সুস্থ হওয়ার পরে বুধবার পর্যন্ত মিলখা সিংকে নন-কোভিড মেডিক্যাল ইনটেসিভ কেয়ার ইউনিটে রাখা হয়েছিল। চিকিৎসকরা তাকে বিশেষ নজর দিয়ে রেখেছিলেন। জ্বর কমলেও বৃহস্পতিবার রাত থেকেই মিলখা সিং-এর অক্সিজেন লেভেল কমতে শুরু করে। শুক্রবার সন্ধ্যায় শারীরিক অবস্থা সংকটজনক হয়ে দাঁড়ায়। অবশেষে আর মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই চালাতে পারেননি মিলখা।

পরে হাসপাতালের পক্ষ থেকেও বিজ্ঞপ্তি জারি করে মিলখা সিংয়ের মৃত্যুর খবর জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে লেখা হয়, ‘কিংবদন্তি ভারতীয় স্প্রিন্টার মিলখা সিং গত ৩ জুন পিজিমার -এর কোভিড হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি হন। ১৩ জুন পর্যন্ত করোনার চিকিৎসা চলে। করোনা নেগেটিভ চিহ্নিত হওয়ার পর তাকে মেডিক্যাল আইসিইউতে স্থানান্তরিত করা হয়। তবে মেডিক্যাল টিমের সব রকম চেষ্টা সত্ত্বেও তাকে সংকটজনক অবস্থা থেকে ফেরানো যায়নি। সাহসী লড়াইয়ের পর ১৮ জুন রাত ১১টা ৩০ মিনিট নাগাদ হাসপাতালেই পরলোক গমন করেন তিনি।’

প্রাক্তন সেনা কর্মী মিলখা সিং দেশকে বহু গৌরব এনে দিয়েছেন। ভারতের হয়ে এশিয়ান গেমসে চারটি সোনা জেতেন মিলখা। ১৯৫৮ টোকিও এশিয়াডের ২০০ ও ৪০০ মিটারে চ্যাম্পিয়ন হন। ১৯৬০ রোম অলিম্পিকের ৪০০ মিটারের ফাইনালে চতুর্থ হয়ে অল্পের জন্য পদক হাতছাড়া করেন মিলখা।

ডি-ইভূ



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *