পুলিশ ম্যাজিকের মতো সহযোগিতা করেছে: পরী মনি


অভিনেত্রী পরী মনি বলেছেন, আমাকে ডিবি পুলিশ ডাকেনি, আমি নিজ থেকেই এখানে এসেছি। পুলিশ ম্যাজিকের মতো কাজ করেছে। পুলিশ এতোটা ম্যাজিকেবল হয় তা জানা ছিল না। এখানে আসার পর তারা (পুলিশ) আমাকে বলেছে, সবকিছু পেছনে ফেলে কাজে ফিরতে হবে। আমাকে তারা সাহস জুগিয়েছেন। আমি আসলে স্বস্তি নিয়ে বাঁচতে চাই।

মঙ্গলবার (১৫ জুন) সন্ধ্যায় ডিবি কার্যালয় থেকে বেরিয়ে গণমাধ্যমকে এসব কথা বলেন তিনি। এসময় অন্যান্যের মধ্যে ডিবির যুগ্ম কমিশনার (উত্তর) হারুন অর রশিদ, ডিবি গুলশান বিভাগের ডিসি মশিউর রহমান, পরিচালক চয়নিকা চৌধুরী, পরীমনির কস্টিউম ডিজাইনার জুনায়েদ করিম জিমি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

পরীমনি বলেন, পুলিশ এতোটা তাড়াতাড়ি ম্যাজিকের মতো আমাকে সহযোগিতা করবে সেটা আমি ভাবতে পারিনি। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমার একমাত্র ভরসা আইজিপিই (ড. বেনজীর আহমেদ) ছিলেন। কিন্তু সে পর্যন্ত পৌছাতে পারিনি। চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির কাছে আইজিপির সঙ্গে দেখা করিয়ে দেয়ার ব্যবস্থা করতে বলেছিলাম। কিন্তু কোনো সহযোগীতা পাইনি। পরে বিষয়টি নিয়ে হতাশা প্রকাশ করেছিলাম। আইজিপি কিন্তু বিষয়টি শোনার পরে সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নিতে বলেছেন। মাত্র কয়েক ঘন্টার ব্যবধানে পুলিশ ব্যবস্থা নিয়েছেও। আশা করি দ্রুতই কাজে ফিরতে পারবো। সবাই দোয়া করবেন আমার জন্য।

যুগ্ম কমিশনার বলেন, বিষয়টি জানার পর আইজিপি নির্দেশ দেন এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা জন্য। আমরা মাত্র কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই অভিযুক্তদের আইনের আওতায় এনেছি। পরী মনি আমাদের জানিয়েছে, শিল্পী সমিতি ও প্রযোজক সমিতির মাধ্যমে আইজিপির সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে দেখা করতে চেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সংগঠন দুটি সে সুযোগ করে দেয় নাই। এজন্য কিছুটা ক্ষোভ জমেছিলো তার মধ্যে। পাশাপাশি বনানী থানার বিষয়ে জানিয়েছে, সে যখন থানায় গিয়েছিলো তখন ভোর ৪টা বাজে। সে সময় থানায় ওসি ছিলেন না বলে আমরা জানিয়েছি। একইসঙ্গে পরীমনি বলেছেন, যারা তার সঙ্গে অশোভন আচরণ করেছেন তারা যত বড় শক্তিশালী হোক যেন উপযুক্ত বিচার নিশ্চিত করা হয়। আমরাও আশ্বাস দিয়েছি, এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না।

এর আগে, গতকাল বিকেল সাড়ে চারটার দিকে পরীমনি পরিচালক চয়নিকা চৌধুরী ও তার কস্টিউম ডিজাইনারকে নিয়ে যুগ্ম কমিশনার হারুন অর রশিদের কার্যালয়ে যান। সেখানে ঢাকা বোট কাবে ঘটে যাওয়া নানা বিষয় নিয়ে পুলিশের সঙ্গে বেশকিছুক্ষণ আলাপ করেন তিনি।

গত ৯ জুন (বুধবার) রাতে ঢাকা বোট কাবে ধর্ষণ ও হত্যার চেষ্টা করা হয় বলে অভিযোগ করেন পরী মনির। গত রবিবার রাতে প্রথমে তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে এক পোস্টের মাধ্যমে বিষয়টি তুলে ধরেন এই অভিনেত্রী। পরে সাভার মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হলে প্রধান অভিযুক্ত নাসির উদ্দিন মাহমুদ ও অমিসহ ৫ জনকে গ্রেপ্তার করে রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ।

আর-আইআর/ডি-এমএইচ



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *