নারীর শক্তিশালী হওয়া সবাই অন্য নজরে দেখে: নুসরাত


হাজারো আলোচনা ও সমালোচনার মধ্যেও নিজের মতো করেই চলছেন নুসরাত জাহান। ইচ্ছে মতো চলেন বলেই কি তাকে নিয়ে এত বিতর্ক? এমন প্রশ্ন নুসরাত নিজেই দিলেন মঙ্গলবারের ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে।

আন্তর্জাতিক মানের কবি সাবা খোদিরের পংক্তি ক্যাপশনে দিয়ে অভিনেত্রী বলতে চাইলেন, ‘নারীকে সবার পরামর্শ, শক্তিশালী হও। সেই নারী আপন শক্তিতে নিজের অবস্থান বদলালেই সমাজের চোখে তার পরিচয় বদলে যায়! তার নামের পাশে তখন নানা তকমা। ততক্ষণে সেই নারী নিজের ক্ষমতায় ক্ষমতাশালী। ফলে, যতই তাকে দমিয়ে রাখার চেষ্টা করা হোক, সে কারওর কথাই শুনবে না’!

ইনস্টাগ্রাম স্টোরি বলছে, এই পংক্তির হাত ধরে কোথাও যেন সাবা খোদির আর নুসরত জাহান মিলেমিশে একাকার। ভক্তরাও এই স্টোরি দেখে প্রশ্ন তুলেছেন, নুসরাত কি ঘুরিয়ে নিজের বর্তমান পরিস্থিতির কথাই বললেন? উত্তর জানা নেই। তবে সাংসদ-তারকার জীবনে ঘটে যাওয়া একের পর এক ঘটনা প্রমাণ করে দিয়েছে, মানসিক দিক থেকে তিনিও প্রচণ্ড দৃঢ়।

নিখিল জৈন বিতর্ক, গর্ভনিরোধক বিজ্ঞাপনের মুখ হওয়া, যশ দাশগুপ্তের সঙ্গে সম্পর্ক এতগুলো ঘটনার কারণে ইতোমধ্যেই নুসরাত রাজনৈতিক বিরোধীদের কটাক্ষের শিকার। তার পরেও নুসরাত নিজের বিশ্বাসে অটল।

বরাবরই নিয়মের বেড়াজাল ভাঙতে ভালবাসেন নুসরাত। সমাজের রক্তচক্ষু দেখে তিনি ভয় পান না। নিখিলের সঙ্গে ‘বিয়ে’ হওয়ার পরে কটাক্ষ শুনতে হয়েছিল, কেন তিনি অন্য ধর্মাবলম্বী মানুষের সঙ্গে সংসার করছেন! তার পরে মহালয়া উপলক্ষে দুর্গা সাজা নিয়েও কম আক্রমণ করা হয়নি তাঁকে। তা ছাড়া পোশাক নিয়ে, শরীর নিয়ে অশ্লীল কথায় ভর্তি তার ছবি ও ভিডিওর মন্তব্য ঘর। নিখিলের সঙ্গে তার সম্পর্কের নাম বদলে ফেলা থেকে শুরু করে সন্তানধারণ, সব নিয়েই কটাক্ষের মুখে অভিনেত্রী।



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *