সাব্বির-নাঈম ঝড়ের পরও পারেনি রূপগঞ্জ – শেয়ার বিজ


ক্রীড়া ডেস্ক: নিজেকে খুঁজতে থাকা সাব্বির রহমান অবশেষে স্বরূপে ফিরলেন। ব্যাট হাতে রোববার তুললেন ঝড়। অন্যদিকে অধিনায়ক নাঈম ইসলামও শেষ দিকে ছোট ক্যামিও ইনিংস খেললেন। তাদের ব্যাটে ভর করে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের বিপক্ষে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ পায় লড়াইয়ের পুঁজি। কিন্তু এদিন আরও একবার দলটিকে নিরাশ করল বোলাররা। তাইতো তাদের ব্যর্থতায় শেষ পর্যন্ত বৃষ্টি বিঘ্নিত ম্যাচটি ডিএল ম্যাথডে ৭ উইকেটে হেরেছে নারায়ণগঞ্জের দলটি।

বিকেএসপির তিন নম্বর মাঠে রোববার টস হেরে ব্যাট করতে নেমে সাব্বির (৩১ বলে ৪১) ও নাঈমের (১৯ বলে ৩০) নৈপুণ্যে নির্ধারিত ২০ ওভারে রূপগঞ্জ করে ৬ উইকেটে ১৩৭ রান। জবাব দিতে নেমে ১৮ ওভারে ৪ উইকেটে ১২৭ রান তোলে শেখ জামাল। এরপর বিকেএসপিতে শুরু হয় বৃষ্টি। পরে অপেক্ষা করেও আবহাওয়া খেলা উপযোগী না হওয়ায় ম্যাচ অফিসিয়ালরা শেখ জামাল ধানমন্ডিকে ৭ উইকেটে বিজয়ী ঘোষণা করে।

রোববার ব্যাট করতে নেমে দারুণ কিছুর আশা দিলেও ২৮ রানে থামে রূপগঞ্জ ওপেনার পিনাকের ইনিংস। অবশ্য ব্যাট হাতে জ্বলে উঠেন সাব্বির রহমান। দীর্ঘদিন পর রানে ফিরেছেন এই ব্যাটসম্যান। তিনে ব্যাট করতে নেমে বেশ আগ্রাসী ভূমিকায় ব্যাটিং করতে দেখা যায় তাকে। ৩১ বলে ৪১ রান করেন এ ডানহাতি। শেষ দিকে নাঈম তোলেন ঝড়। তার অপরাজিত ১৯ বলে ৩০ রানের সুবাধে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৩৭ রান সংগ্রহ করে রূপগঞ্জ।

প্রতিপক্ষের সামনে ১৩৭ রানের লক্ষ্য দিয়ে বোলিংয়ের শুরুটা হয়েছিল রূপগঞ্জের আশা জাগানিয়া। ইনিংসের ৪র্থ ওভারের ১ম বলে শেখ জামাল ওপেনার নাসির হোসেনকে ফিরিয়ে দেন মোহাম্মদ শহীত। এরপর অবশ্য খেঁই হারিয়ে ফেলেন দলটির বোলাররা। এ সুযোগে সৈকত আলী ও ইমরুল কায়েস শেখ জামালকে এগিয়ে নেন। একপাশ থেকে ইমরুল ধরে খেললেও অন্যপাশ থেকে দ্রুত গতিতে রান তোলেন সৈকত আলী। সৈকতের সঙ্গে ৫০ রানের জুটি গড়ার পর ১৬ বলে ১১ রান করে আউট হন ইমরুল কায়েস।

সৈকতের বিধ্বংসী ইনিংস থামে দলীয় ৬৬ রানে। ৩০ বলে ৪৩ রান করে হোসেন আলীর বলে আউট হয়ে সাজঘরে ফিরেন তিনি। তবে তখন আবার দলের হাল ধরেন নুরুল হাসান ও ইলিয়াস সানি। দুই ব্যাটসম্যান যখন দলের জয়ের কাজটা সহজ করছিলেন তখনি সাভারে বৃষ্টির বাগড়া আসে। তারপরও খেলা শুরু হয়েছিল। শেষ পর্যন্ত নুরুলই জামালকে জয়ের খুব কাছে নিয়ে যায় ৩০ বলে অপরাজিত ৪৪ রান করে। এরপরই ফের বৃষ্টির হাঁনা। তবে এবার আর ম্যাচ মাঠে গড়াতে পারেনি। তাইতো ম্যাচ অফিসিয়ালরা শেখ জামালকে জয়ী ঘোষণা করে।

রূপগঞ্জের হয়ে হোসাইন আলী ২৮ রানে ২টি উইকেট। ম্যাচসেরা হয়েছেন শেখ জামালের সৈকত আলী।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

রূপগঞ্জ ১৩৭-৬ ( ওভার ২০) সাব্বির ৪১, নাঈম ৩০*, শাকিল ২/২৩, সৈকত ২/২৪

শেখ জামাল ১২৭/৪ (ওভার ১৮), সোহান ৪৪*, সৈকত ৪৩, হোসেন আলী ২/২৮, শহীদ ১/৩৮

ফল: শেখ জামাল বৃষ্টি আইনে ৭ উইকেটে জয়ী।
ম্যাচ সেরা: সৈকত আলী।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *