‘ব্যাটম্যান’র ঠোঁটে ঠোঁট, প্রেমের গুঞ্জন জেনিফার লোপেজের!


গত বেশ কিছুদিন ধরেই গুঞ্জন শুরু হয়েছে অস্কারবিজয়ী বিখ্যাত অভিনেতা বেন অ্যাফ্লেক এবং বিশ্ববিখ্যাত মার্কিন পপষ্টার জেনিফার লোপেজ -এর সম্পর্ক ঘিরে। এরপর এই জুটিকে একসঙ্গে মায়ামি -তে ছুটি কাটাতে দেখা গেলে সেই গুঞ্জন ক্রমশ পরিণত হয়েছে গর্জনে। তা সত্ত্বেও ওই দুই তারকার পক্ষ থেকে এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য করা হয়নি।

তবে এবার প্রকাশ্যেই ‘ব্যাটম্যান’ -খ্যাত অভিনেতা বেন অ্যাফ্লেক -এর ঠোঁটে ঠোঁট রেখে তাদের সম্পর্কের গুঞ্জনকে একলাফে বাড়িয়ে দিলেন ‘জে লো’। সংবাদমাধ্যমের প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে জানা গেছে মায়ামির ফ্লোরিডা অঞ্চলে ছুটি কাটাচ্ছেন এই তারকা জুটি। সেখানকারই এক জিমে তাদের একসঙ্গে ব্যায়াম করতে দেখেছেন এক ব্যক্তি। খবর হিন্দুস্তান টাইমসের।

সেই প্রতক্ষ্যদর্শীর মতে জিমের মধ্যেই ব্যায়াম করার ফাঁকে ঘনিষ্ঠভাবে একে অপরের ঠোঁটে ঠোঁট ডুবিয়ে ছিলেন তারা। সেই ব্যক্তির কথায় ‘কোনও কিছু’ লুকোনোর চেষ্টাই করছিলেন না ‘ব্যাটম্যান’। যদিও আলাদা আলাদা ফিটনেস ট্রেনারের কাছে শারীরিক কসরৎ করছিলেন বেন ও জেনিফার তবু নিজেদের বর্তমান সম্পর্কের রসায়নকে প্রকাশ করতে পিছপা হননি এদের কেউই।

বিভিন্ন এক্সারসাইজের সেট শেষ করার পর মাঝে মাঝেই নাকি একে অপরের সঙ্গে খুনসুটিতে মেতে উঠেছিলেন জেনিফার ও বেন। প্রবল হাসাহাসির মাঝ পথেই নাকি একে ওপরের ঘনিষ্ঠ হয়ে নিবিড়ভাবে ঠোঁটে ঠোঁট রাখছিলেন তারা। পরস্পরের সঙ্গে যে দুর্দান্ত সময় কাটাচ্ছেন এই জুটি তা বুঝতে নাকি ওই জিমে উপস্থিত কারোরই বুঝতে কোনও অসুবিধে হয়নি। অনেকের মতে, এই জুটিকে তখন দেখে মনে হচ্ছিল তারা যেন নিজেদের ‘মধুচন্দ্রিমা’ কাটাচ্ছেন!

সূত্রের তথ্যমতে, প্রতিদিন ব্যায়াম করাটা জেনিফারের অভ্যাস। বেশ কড়াভাবেই এই নিয়ম মেনে চলেন তিনি। পারতপক্ষে জিম মিস করেন না এই তন্বী পপস্টার। তাই জেনিফারের আরও একটু কাছাকছি থাকার জন্য জিমে হাজির হয়েছিলেন বেন-ও। বলাই বাহুল্য, এই খবরে আশায় বুক বাঁধছেন জেনিফার ও বেনের অনুরাগীরা।

প্রসঙ্গত, ২০০২ সালে জেনিফার ও বেন সম্পর্কে থাকলেও ২০০৪ সালে তাদের বিচ্ছেদ হয়ে যায়। তবে সম্প্রতি অ্যালেক্স রডরিগেজ -এর সঙ্গে চার বছরের সম্পর্কের বিচ্ছেদ টেনেছেন জেনিফার। অন্যদিকে, গত জানুয়ারিতে অভিনেত্রী আনা দে আর্মাস -এর সঙ্গে নিজের সম্পর্কে চ্ছেদ টেনেছেন বেন। তারপরেই এই জুটিকে একসঙ্গে দেখা গেছে মায়ামিতে।



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *