টাইগারদের ভুলে হোয়াইটওয়াশ এড়াল শ্রীলঙ্কা


শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে জয় তুলে নিয়ে প্রথমবারের মতো লঙ্কানদের বিপক্ষে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জয়ের স্বাদ পায় বাংলাদেশ। শুক্রবার (২৮ মে) সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন শ্রীলঙ্কাকে হারানোর মিশনে খেলতে নামে টাইগারা। কিন্তু ক্যাচ মিস এবং বাজে ব্যাটিংয়ের খেসারতে ৯৭ রানের বিশাল ব্যবধানে ম্যাচ হারে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। আর এই হারের কারণে সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন শ্রীলঙ্কাকে হোয়াইওয়াশের স্বাদ দিতে ব্যর্থ হয়েছে তামিম-মুশফিকরা। বাংলাদেশের অধিনায়ক তামিম ইকবালও ম্যাচ পরবর্তী পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে স্বীকার করেছেন ক্যাচগুলো মিস না হলে ফলাফল অন্যরকম হতো। তবে তামিম জানিয়েছেন বাংলাদেশ পরবর্তী ম্যাচগুলোতে এই সমস্যাগুলো দূর করার সব চেষ্টা করবে।

সিরিজ সেরার পুরস্কার হাতে মুশফিকুর রহিম

শ্রীলঙ্কা বাংলাদেশের বিপক্ষে এই জয় তুলে নেওয়ার মাধ্যমে ওয়ানডে সুপার লিগে প্রথম ১০ পয়েন্ট তুলে নিয়েছে। আর বাংলাদেশ সুপার লিগে নিজেদের শীর্ষস্থানটি আরো শক্ত অবস্থানে রাখতে ব্যর্থ হয়েছে। বর্তমানে ৯ ম্যাচ খেলে পাঁচটিতে জয় তুলে নিয়ে ৫০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষস্থানে আছে টাইগাররা। সমান ৪০ পয়েন্ট নিয়ে যথাক্রমে তৃতীয় ও চতুর্থস্থানে আছে ইংল্যান্ড ও পাকিস্তান।

এদিকে শ্রীলঙ্কাকে শুক্রবারের শেষ ম্যাচটিতে হারের স্বাদ দিতে পারতেন তামিম-মুশফিকরা তাহলে ওয়ানডেতে তৃতীয় কোন বিশ্বচ্যাম্পিয়ন দলকে হোয়াইটওয়াশ করতে পারত বাংলাদেশ। বাংলাদেশ এর আগে সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজকে দুইবার ও পাকিস্তানকে একবার ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ করেছিল।
শুক্রবারের শেষ ম্যাচটিতে টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করে ৫০ ওভার খেলে ছয় উইকেট হারিয়ে শ্রীলঙ্কা ২৮৬ রান করে। এর মাধ্যমে সিরিজটিতে প্রথমবারের মতো ২৫০ এর ঘর পার করে তারা। জবাবে বাংলাদেশ ৪২ ওভার ৩ বল খেলে ১৮৯ রানে অলআউট হয়। শ্রীলঙ্কার হয়ে সর্বোচ্চ ১২০ রান করেন অধিনায়ক কুশাল পেরেরা। তিনি তিনবার ক্যাচ আউট থেকে বেঁচে গিয়ে নিজের সেঞ্চুরি তুলে নেন। তাকে যদি আগে ফেরাতে পারতো বাংলাদেশ তাহলে ম্যাচের ফল অন্যরকম হতে পারতো। লঙ্কানদের হয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৫৫ রান করে অপরাজিত ছিলেন ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা। বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ চারটি উইকেট তুলে নেন পেসার তাসকিন আহমেদ। বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ ৫৩ রান করেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। আর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৫১ রান করেন মোসাদ্দেক হোসেন। লঙ্কানদের হয়ে সর্বোচ্চ পাঁচটি উইকেট তুলে নেন দুশমন্ত চামিরা। ৯ ওভার বল করে মাত্র ১৬ রান দিয়ে তিনি এই উইকেটগুলো তুলে নেন। তাই তার হাতেই যায় ম্যাচ সেরার পুরষ্কার। এছাড়া দলটির দুই অভিষিক্ত বোলার রমেশ মেন্ডিস দুটি ও বিনুরা একটি উইকেট লাভ করেন।

বিসিবির সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের হাত থেকে পুরস্কার গ্রহণ করছেন টাইগার অধিনায়ক তামিম ইকবাল

বাংলাদেশের হয়ে শুক্রবার ব্যাটিংয়ে জ্বলে ওঠতে পারেননি আগের দুই ম্যাচের নায়ক মুশফিকুর রহিম। তিনি ২৮ রান করে আউট হন। আর বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান শেষ ম্যাচে মাত্র ৪ রান করেন। পুরো সিরিজটিতে তিনি মাত্র ১৯ রান করেছেন। তাছাড়া শুক্রবার তিনি কোন উইকেটও তুলে নিতে পারেননি। যদি তিনি উইকেট নিতে পারতেন তাহলে মাশরাফিকে টপকে ওয়ানডেতে বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী হতেন তিনি। এখন দুইজনই সমান ২৬৯টি করে উইকেট নিয়ে শীর্ষে আছেন। সাকিব আল হাসান এই ২০২১ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিন ম্যাচের সিরিজে খেলেছেন। আর এই দুটি সিরিজেরই শেষ ম্যাচে কোন উইকেট তুলে নিতে ব্যর্থ হয়েছেন তিনি। অপরদিকে তৃতীয় ম্যাচের জন্য বিশেষভাবে ডাকা ওপেনার নাঈম শেখ মাত্র এক রান করে আউট হয়েছেন। অলরাউন্ডার মেহেদি হাসান ম্যাচটিতে কোন রানই করতে পারেননি।

মুশফিক অবশ্য ২৮ রান করলেও নতুন একটি কীর্তি গড়েছেন। আর সেটি হলো শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম বাংলাদেশী ব্যাটসম্যান হিসেবে এক হাজারের বেশি রান করা। লঙ্কানদের বিপক্ষে মুশফিকের রান এখন ১ হাজার ২০। শ্রীলঙ্কা ও বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের মধ্যে এতোদিন এক হাজার বা তার বেশি রান ছিল কুমার সাঙ্গাকারা ও মাহেলা জয়াবর্ধনের। তাদের দুজনের রান যথাক্রমে ১ হাজার ২০৬ ও ১ হাজার ৩০।



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *